সন্তান লাভের আনন্দে মিষ্টি বিতরণ করা যাবে কি?

জিজ্ঞাসা–৩২২: আস্সালামুআলাইকুম। হযরত, গতকাল আমার একটি মামাতো ভাই ভূমিষ্ট হয় সীজারে। আমার মামা পুত্র সন্তান এর খুশিতে আধমণ মিষ্টি পুরো এলাকায় বিতরণ করলেন। এ বিষয়টি কতটুকু শরীয়াত সম্মত? মেহেরবানী করে জানাবেন?– মুহাম্মদ মেহেদী হাসান: mehedi101h@gmail.com

জবাব: وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

প্রিয় প্রশ্নকারী ভাই, সন্তান লাভ করা আল্লাহ তাআলার বিশেষ নেয়ামত। সুতরাং সন্তান ভূমিষ্ঠ হলে প্রধান কাজ হল, আল্লাহর প্রসংশা করা, তার শুকরিয়া আদায় করা। পবিত্র কোরআনে ইবরাহিম আ. সম্পর্কে ইরশাদ হয়েছে, সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর তিনি বলেন,

الْحَمْدُ لِلّهِ الَّذِي وَهَبَ لِي عَلَى الْكِبَرِ إِسْمَاعِيلَ وَإِسْحَقَ إِنَّ رَبِّي لَسَمِيعُ الدُّعَاء
সমস্ত প্রশংসা আল্লাহরই, যিনি আমাকে এই বার্ধক্যে ইসমাঈল ও ইসহাক দান করেছেন নিশ্চয় আমার পালনকর্তা দোয়া শ্রবণ করেন। (সূরা ইবরাহিম: ৩৯)
তদ্রুপ আত্মীয় ও শুভানুধ্যায়ীদের সুসংবাদ প্রদান করা, অন্যরা সন্তানের মা-বাবাকে মোবারকবাদ দেয়া এবং মা-বাবা তাদের এই আনন্দ বৈধতার সীমানায় থেকে অন্যের সঙ্গে শেয়ার করাও শরিয়তসম্মত শিষ্টাচার। পবিত্র কুরআনে এরশাদ হয়েছে,
وَامْرَأَتُهُ قَآئِمَةٌ فَضَحِكَتْ فَبَشَّرْنَاهَا بِإِسْحَقَ وَمِن وَرَاء إِسْحَقَ يَعْقُوبَ আর তার (ইবরাহিমের) স্ত্রী দাঁড়ানো ছিল, সে হেসে উঠল। অতঃপর আমি তাকে সুসংবাদ দিলাম ইসহাকের ও ইসহাকের পরে ইয়াকুবের। (সূরা হুদ : ৭১)
এ আয়াতে আল্লাহ তাআলা ইবরাহিম আলাইহিস সালামের স্ত্রীকে সন্তানের সুসংবাদ প্রদান করেছেন।
হাসান ইবনে আলী রাযি. কারো সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার সংবাদ শুনলে এ বলে দোয়া করতেন–
بورك لك في الموهوب، وشكرت الواهب، وبلغ أشده، ورزقت بره
অর্থ : আল্লাহ তোমার জন্য এ সন্তানে বরকত দান করুন। তুমি আল্লাহর শুকরিয়া আদায় কর। এ সন্তান দীর্ঘজীবী হোক। আল্লাহ তোমাকে এর কল্যাণ দান করুন। (ইমাম নববির আজকার গ্রন্থ দ্রষ্টব্য)

প্রিয় প্রশ্নকারী ভাই, আপনার মামা সন্তান লাভের খুশিতে যে মিষ্টি বিতরণ করেছেন, তা শরিয়ত-বিরোধী হয় নি। তবে যদি তার এ আনন্দ-প্রকাশ কেবল পুত্র সন্তান লাভের কারণে হয় এবং মেয়ে সন্তান হলে তিনি নিরানন্দ প্রকাশ কারণে তাহলে এটা হবে জাহিলিয়াত বা মূর্খতা। যে মূর্খতার বিবরণ আল্লাহ তাআলা সূরায়ে নাহলে এভাবে দিয়েছেন- وَ اِذَا بُشِّرَ اَحَدُهُمْ بِالْاُنْثٰی ظَلَّ وَجْهُهٗ مُسْوَدًّا وَّ هُوَ كَظِیْمٌ یَتَوَارٰی مِنَ الْقَوْمِ مِنْ سُوْٓءِ مَا بُشِّرَ بِهٖ اَیُمْسِكُهٗ عَلٰی هُوْنٍ اَمْ یَدُسُّهٗ فِی التُّرَابؕ اَلَا سَآءَ مَا یَحْكُمُوْنَ তাদের কাউকে যখন কন্যা সন্তানের সুসংবাদ দেয়া হয় তখন তার মুখম-ল কালো হয়ে যায় এবং সে অসহনীয় মনোস্তাপে ক্লিষ্ট হয়। তাকে যে সুসংবাদ দেয়া হয়, তার গ্লানী হেতু সে নিজ সম্প্রদায় হতে আত্মগোপন করে; সে চিন্তা করে যে, হীনতা সত্ত্বেও সে তাকে রেখে দিবে, না মাটিতে পুঁতে দিবে। লক্ষ্য কর, সে কত নিকৃষ্ট সিদ্ধান্ত স্থির করেছিল। (সূরা নাহল: ৫৮-৫৯ )

والله اعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন
মাওলানা উমায়ের কোব্বাদী

আরো পড়ুন:

নবজাতকের ক্ষেত্রে ভুল-শুদ্ধ কিছু রীতি
 
 
 
 

 শিশুদের কপালে কালো টিপ দেওয়া যাবে কি না?
 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × three =