অনুমতি ছাড়া স্বামীর টাকা খরচ করা যাবে কিনা?

জিজ্ঞাসা–৬৫৭: স্বামীর টাকা না জানিয়ে মা-ভাইকে দেওয়া জায়েজ হবে কি? কিন্তু স্বামীকে জানিয়ে দিলে তেমন কিছু বলবেন না তবে লজ্জার একটা বিষয় তাই যদি না জানিয়ে কিছু টাকা দেওয়া হয় এতে গুনাহ হবে কিনা? আর তিনি এমনিতে তার টাকা আমার কাছে দিয়ে রাখেন আর বলেন, তোমার যা প্রয়োজন লাগবে তুমি খরচ করতে পার। (আমার পরিচিত এক আপুর প্রশ্ন ছিল এটা)দয়া করে উওর জানালে উপকৃত হতাম!–আইরিন।

জবাব: অনুমতি ছাড়া স্বামীর টাকা খরচ করা স্ত্রীর জন্য জায়েয নয়। তবে স্ত্রী যদি জানেন যে, তার মা-ভাইয়ের জন্য টুকিটাকি খরচ করলে কিংবা তাদেরকে অল্প-স্বল্প হাদিয়া দিলে তার স্বামীর মন খারাপ হবে না; যেসব ক্ষেত্রে স্বভাবত মানুষ সহজভাবে দেখে থাকে তাহলে এমন কিছু স্বামীর স্পষ্ট অনুমতি ছাড়া স্ত্রী তার মা-ভাইয়ের জন্য খরচ করতে পারেন। যেহেতু স্ত্রীর প্রবল ধারণা হয় যে, স্বামী এতে সায় দিবে, আপত্তি করবে না। এতে করে তারা দুইজনেই সওয়াব পাবে।

আয়েশা রাযি. থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ বলেছেন,

إِذَا أَنْفَقَتِ المَرْأَةُ مِنْ طَعَامِ بَيْتِهَا غَيْرَ مُفْسِدَةٍ ، كَانَ لَهَا أَجْرُهَا بِمَا أَنْفَقَتْ ، وَلِزَوْجِهَا أَجْرُهُ بِمَا كَسَبَ ، وَلِلْخَازِنِ مِثْلُ ذَلِكَ، لاَ يَنْقُصُ بَعْضُهُمْ أَجْرَ بَعْضٍ شَيْئًا

যদি কোন স্ত্রী ক্ষতি না করে বাড়ীর খাবার থেকে দান করে তাহলে সে তার দানের সওয়াব পাবে এবং তার স্বামী এ খাবার উপাজর্নের কারণে সওয়াব পাবে। আর সঞ্চয়কারীও সওয়াব পাবে। এদের কেউ অন্যে সওয়াবে কমতি করবে না। (সহিহ বুখারী ও সহিহ মুসলিম)

কিন্তু স্বামী যদি রাগ করে বা নিষেধ করে তাহলে তাহলে কম হোক বা বেশি হোক তার সম্পদ খরচ বা দান-সদকা করা থেকে বিরত থাকা আবশ্যক। কেননা, রাসূলুল্লাহ বলেছেন,

ﻻ ﺗُﻨْﻔِﻖُ ﺍﻟْﻤَﺮْﺃَﺓُ ﺷَﻴْﺌًﺎ ﻣِﻦْ ﺑَﻴْﺘِﻬَﺎ ﺇِﻻ ﺑِﺈِﺫْﻥِ ﺯَﻭْﺟِﻬَﺎ . ﻓَﻘِﻴﻞَ : ﻳَﺎ ﺭَﺳُﻮﻝَ ﺍﻟﻠَّﻪِ ، ﻭَﻻ ﺍﻟﻄَّﻌَﺎﻡَ ؟ ﻗَﺎﻝَ : ﺫَﺍﻙَ ﺃَﻓْﻀَﻞُ ﺃَﻣْﻮَﺍﻟِﻨَﺎ ‏

মহিলা তার স্বামীর বাড়ির কোন অর্থ-সম্পদ তার অনুমতি ছাড়া খরচ করবে না। তাঁকে জিজ্ঞেস করা হল, খাদ্যদ্রব্যও নয়? তিনি বললেন, এটি তো আমাদের সবচেয়ে উত্তম সম্পদ। (সুনান আবু দাউদ ৩৬৬৫)

والله أعلم بالصواب
আরো পড়ুন–

Leave a Reply

Your email address will not be published.

2 × 3 =