অল্প বীর্য বের হলে নামাজ পড়ার জন্য কি গোসল করতে হবে?

জিজ্ঞাসা–১৪৪৮: কোন কারণে অল্প বীর্য বাহির হলে নামাজ পড়ার জন্য কি গোসল করতে হবে– abdul awal

জবাব: প্রিয় প্রশ্নকারী ভাই, যদি উত্তেজনার কারণে মযি বা কামরস নির্গত হয় তাহলে ওযূ নষ্ট হবে এবং যেখানে মযি লেগেছে ওই জায়গা ধুয়ে ফেলতে হবে। এর কারণে গোসল ওয়াজিব হবে না। কিন্তু যদি উত্তেজনার কারণে মনি তথা তথা বীর্য বের হয় তাহলে গোসল ফরয হবে বিধায় নামাজ পড়ার জন্য গোসল করতে হবে। কেননা, হাদিস শরিফে এসেছে, আলী রাযি. বলেন,

كُنتُ رجلًا مذَّاءً ، فقالَ لي رسولُ اللَّهِ ﷺ : إذا رَأيتَ المذيَ ، فاغسلْ ذَكَرَكَ ، وتَوضَّأ وضوءَكَ للصَّلاةِ ، وإذا فَضختَ الماءَ ، فاغتَسِلْ

আমার অধিক মযি বের হত। তাই রাসূলুল্লাহ ﷺ আমাকে বলেছেন যে, যখন তুমি মযি দেখবে তখন লজ্জাস্থান ধুয়ে নিবে এবং নামাজের ওযূ করে নিবে। আর যদি উত্তেজনা বশতঃ বীর্য নির্গত হয় তবে গোসল করবে। (বুখারী ২৬৯)

উল্লেখ্য, মনি ও মযির মধ্যে অন্যতম পার্থক্য হল, মনি বের হওয়ার পর যৌন নিস্তেজতা আসে। পক্ষান্তরে মযি বের হওয়ার পর এরকম কোন নিস্তেজতা আসে না।

والله أعلم بالصواب

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

17 − 14 =