কুকুরের শরীর বা লালা লাগলে তার হুকুম কী?

জিজ্ঞাসা–২৩৮: আসসালামু আলাইকুম। কুকুরের দেহ বা লালা হাতে কিংবা গায়ে লাগলে ফরয গোসল করতে হবে?–noman

জবাব:  وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

কুকুরের লালা নাপাক কিন্তু কুকুরের শরীর নাপাক নয়। সুতরাং কুকুর যদি কারো শরীর অথবা কাপড় ছুঁয়ে দেয় তাহলে তা নাপাক হবে না। আর যেহেতু কুকুরের লালা নাপাক তাই যদি কাপড়ে, শরীরে বা অন্য কোনো জিনিসে লালা লেগে যায় তবে তা নাপাক হয়ে যাবে। অন্যথায় নাপাক হবে না। এছাড়া কুকুরের শরীরে তরল নাপাক লেগে থাকলে সেক্ষেত্রেও তা স্পর্শ করলে কাপড় নাপাক হয়ে যাবে। (আলবাহরুর রায়েক ১/১০১ ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/৪৮ আদ্দুররুল মুখতার ১/২০৮)

তবে কুকুরের লালা লাগলে গোসল ফরয হয়না; বরং যেখানে লেগেছে তা তিনবার ধুয়ে নিলেই পাক হয়ে যায়। কমপক্ষে তিনবার ধোয়া জরুরী। কেননা হাদীস শরীফে এসেছে, আবু হুরায়রা রযি. থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ ﷺ বলেছেন, إِذَا وَلَغَ الْكَلْبُ فِي الإِنَاءِ فَاهْرِقْهُ ثُمَّ اغْسِلْهُ ثَلاثَ مَرَّاتٍ যখন কুকুর পাত্রে মুখ দেয় তখন পাত্রের বস্তুটি ফেলে দাও, তারপর পাত্রটি তিনবার ধুয়ে নাও। (দারাকুতনী ১৬৫) 

আতা রহ. বলেন, أَنَّهُ كَانَ إِذَا وَلَغَ الْكَلْبُ فِي الْإِنَاءِ أَهْرَاقَهُ وَغَسَلَهُ ثَلَاثَ مَرَّات আবু হুরায়রা রযি. কুকুরের মুখ দেয়া পাত্রের বস্তু ফেলে দিয়েছেন এবং পাত্রটি তিনবার ধুয়েছেন। (দারাকুতনী ১৬৬) 
আর সাতবার ধোয়া উত্তম। তন্মধ্যে একবার মাটি বা সাবানদ্রব্য দ্বারা মেজে ফেললে বা ধুয়ে ফেললে আরও উত্তম। কেননা হাদীস শরীফে এসেছে, আবু হুরায়রা রযি. থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ ﷺ বলেছেন, إِذَا شَرِبَ الْكَلْبُ فِيْ اِنَاءِ أَحَدِكُمْ فَلْيَغْتَسِلْهُ سَبْعَ مَرَّاتٍ তোমাদের কারো পাত্রে যখন কুকুর পানি পান করে, তখন সে যেন তা সাতবার ধুয়ে নেয়। (বুখারী ১৭২, মুসলিম ২৭৯)

মুসলিমের এক বর্ণনায় অতিরিক্ত বলা হয়েছে,اُوْلَاهُنَّ بِالتُّرْاب সাতবারের প্রথমবার মাটি দিয়ে।

والله أعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

six + 14 =