কোরআন-সুন্নাহ বর্ণিত দোয়াগুলোতে বচন পরিবর্তন প্রসঙ্গে

জিজ্ঞাসা–১১৪৩: আলাইকুম। কুরআন হাদীসে বর্ণিত যে সব দুআ বহুবচনে রয়েছে সেগুলো কি একাকি দুআ করার সময় পড়া যাবে কি– MD.Toufikur Rahman

জবাব: وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

কোরআনে বর্ণিত দোয়াগুলো তেলাওয়াত হিসেবে পড়লে কোনো পরিবর্তন করা যাবে না। তবে দোয়া হিসেবে পড়লে অবস্থাভেদে একবচনের স্থলে বহুবচন কিংবা বহুবচনের স্থলে একবচন-নির্দেশক শব্দ ব্যবহার করার অনুমতি আছে। আর হাদিসে বর্ণিত দোয়াগুলো অবস্থাভেদে একবচনের স্থলে বহু বচন কিংবা বহুবচনের স্থলে একবচন-নির্দেশক শব্দ ব্যবহার করার সুযোগ আছে। তবে সর্বাবস্থায় কোরআন-হাদিসে বর্ণিত দোয়াগুলো কোনো প্রকার পরিবর্তন ছাড়া যেভাবে এসেছে, সেভাবেই পড়া উত্তম।

বারা ইবনু আযিব রাযি. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী বলেছেন, যখন তুমি বিছানায় যাবে তখন মাজ)-এর অজুর মতো অজু করে নিবে। তারপর ডান পার্শ্বে শুয়ে বলবে–

اللَّهُمَّ أَسْلَمْتُ وَجْهِي إِلَيْكَ وَفَوَّضْتُ أَمْرِي إِلَيْكَ وَأَلْجَأْتُ ظَهْرِي إِلَيْكَ رَغْبَةً وَرَهْبَةً إِلَيْكَ لاَ مَلْجَأَ وَلاَ مَنْجَا مِنْكَ إِلاَّ إِلَيْكَ اللَّهُمَّ آمَنْتُ بِكِتَابِكَ الَّذِي أَنْزَلْتَ

‘হে আল্লাহ্! আমার জীবন আপনার কাছে সমর্পণ করলাম। আমার সকল কাজ আপনার কাছে সোপর্দ করলাম এবং আমি আপনার আশ্রয় গ্রহণ করলাম, আপনার প্রতি আগ্রহ ও ভয় নিয়ে। আপনি ছাড়া কোন আশ্রয়স্থল ও নাজাতের স্থান নেই। হে আল্লাহ্! আমি ঈমান আনলাম আপনার নাযিলকৃত কিতাবের উপর এবং আপনার প্রেরিত নবীর উপর।’

তারপর যদি সে রাতেই তোমার মৃত্যু হয় তবে ফিতরাতে ইসলামের উপর তোমার মৃত্যু হবে। এ কথাগুলি তোমার শেষ কথা বনিয়ে নাও। তিনি বললেন, ‘আমি নবী -কে এ কথাগুলো পুনরায় শোনালাম। যখন اللَّهُمَّ آمَنْتُ بِكِتَابِكَ الَّذِي أَنْزَلْتَ পর্যন্ত পৌঁছে وَرَسُولِكَ বললাম, তখন তিনি বললেন, না; বরং وَنَبِيِّكَ الَّذِي أَرْسَلْتَ বল।

والله اعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন
শায়েখ উমায়ের কোব্বাদী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two + 9 =