চাঁদা দিতে বাধ্য হলে করণীয়

জিজ্ঞাসা–১৬০৩: আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে প্রায়ই এলাকার চাঁদাবাজরা চাঁদা দাবী করে, এই টাকা না দিলে প্রতিষ্ঠানে ক্ষতি হবে বা বন্ধ হবে, এমতাবস্থায় তাদের এই চাঁদা দেওয়া যাবে কিনা এবং কোন খাত থেকে দিব? যাকাত ফান্ডের টাকা দিলে যাকাত আদায় হবে কি?–Hasan Manik

জবাব:

এক. অন্যায়ভাবে কারো কাছ থেকে চাঁদা দাবী করা বা আদায় করা স্পষ্ট জুলুম। আর জালিমের শাস্তি সম্পর্কে আল্লাহ তাআলা বলেন,

إِنَّمَا ٱلسَّبِيلُ عَلَى ٱلَّذِينَ يَظْلِمُونَ ٱلنَّاسَ وَيَبْغُونَ فِى ٱلْأَرْضِ بِغَيْرِ ٱلْحَقِّ ۚ أُوْلَٰٓئِكَ لَهُمْ عَذَابٌ أَلِيمٌ

কেবল তাদের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে, যারা মানুষের উপর জুলুম করে এবং জমিনে অন্যায়ভাবে সীমালঙ্ঘন করে বেড়ায়। তাদের জন্য রয়েছে যন্ত্রণাদায়ক আযাব। (সূরা শূরা ৪২)

রাসূলুল্লাহ ﷺ বলেছেন,

إِنَّ رِجَالاً يَتَخَوَّضُوْنَ فِىْ مَالِ اللهِ بِغَيْرِ حَقٍّ فَلَهُمُ النَّارُ يَوْمَ الْقِيَامَةِ

নিশ্চয়ই যারা অন্যায়ভাবে আল্লাহর সম্পদ আত্মসাৎ করবে, কেয়ামতের দিন তাদের জন্য নির্ধারিত রয়েছে জাহান্নাম। (বুখারী ৩১১৮)

দুই. কোনো ব্যক্তি যদি নিজের হক আদায় করতে, কিংবা উক্ত জুলুম থেকে বাঁচার উদ্দেশ্যে চাঁদা কিংবা ঘুষ দিতে বাধ্য হয় তাহলে তার জন্য দেয়া জায়েয আছে। কেননা, সে তো বাধ্য হয়ে দিয়েছে, এখানে কিছু করার নেই।

إذا أَعطى ليتوصل به إلى حقه ، أو يدفع عن نفسه ظلماً : فإنه غير داخل في هذا الوعيد

‘কোনো ব্যক্তি যদি নিজের অধিকার আদায় করতে গিয়ে কিংবা নিজের উপর জুলুম প্রতিহত করতে গিয়ে ঘুষ দেয় তাহলে সে উক্ত সতর্কবাণীর (লানত) অন্তর্ভুক্ত হবে না।’ (মাআলিমুস সুনান ৫/২০৭)

আর যাকাতের জন্য যেহেতু শরিয়ত কর্তৃক নির্ধারিত খাত রয়েছে, তাই যাকাত ওই খাতগুলোতেই খরচ করতে হয়। এ থেকে চাঁদার টাকা দেয়া যাবে না।

والله أعلم بالصواب

Leave a Reply

Your email address will not be published.

one × 1 =