চেয়ারে রক্ত লাগার পর তা শুকিয়ে গিয়েছে…

জিজ্ঞাসা–১২৪: আসসালামু আলাইকুম। চেয়ারে রক্ত লাগার পর তা শুকিয়ে গিয়েছে, পরবর্তীতে সেখানে কেউ বসলো, তার কাপড় কি নাপাক হবে? তার কাপড় ভিজা ছিলো না, যদি পরে অন্য কোথাও থেকে তার কাপড় পানি দ্বারা ভিজে যায়, তাহলে কি চেয়ারের নাপাকি তার কাপড়ে এসে যাবে?–লামিয়া হোসেন।

জবাব: وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

এক. ইমাম কুরতুবী রহ. বলেন,

اتفق العلماء على أن الدم حرام نجس

আলেমগণ এব্যাপারে একমত যে, নিশ্চয় রক্ত হারাম-অপবিত্র। (তাফসিরে কুরতুবী ২/২২২)

আর কোথাও নাপাক লাগলে উক্ত নাপাক দূরিভূত করলেই স্থানটি পবিত্র হয়ে যায়। পুরো স্থান বা কাপড় ধৌত করার প্রয়োজন নেই।

দুই. চেয়ারে রক্ত লাগার পর যদি তা শুকিয়ে যায় এবং যদি পরবর্তীতে সেখানে কেউ বসে তাহলে তার কাপড় বা শরীর নাপাক হবে না। শুকিয়ে যাওয়া দ্বারা উদ্দেশ্য হল, কোন কিছুতে তা লাগলে রক্তের চিহ্ন পরিলক্ষিত না হওয়া। (নাসবুর রায়া ১/২৭৭; ইলাউস সুনান ১/৩৯৬; ফাতাওয়া খানিয়া ১/২৫; খুলাসাতুল ফাতাওয়া ১/৪২)

তিন. পক্ষান্তরে উক্ত কাপড় যদি এতটা ভেজা থাকে যে, টেবিল বা অন্য শুকনা কিছুতে লাগলে তার চিহ্ন দেখা যায়, তাহলে ওই চিহ্ন এক দেরহাম পরিমাণ হলে অসুবিধা নেই। কিন্তু যদি এক দিরহাম থেকে অধিক হয় তাহলে যতটুকুতে লেগেছে ততটুকু নাপাক হয়ে যাবে।

عن علي وبن مسعود أنهما قدرا النجاسة بالدرهم وكفى بهما حجة في الاقتداء

হযরত আলী রাযি.  এবং ইবনে মাসউদ রাযি. নাপাক হওয়ার পরিমাণ নির্দিষ্ট করেছেন এক দিরহাম। আর মানার জন্য দলিল হিসাবে এই দু’জনই যথেষ্ট। (উমদাতুল কারী ৩/১৪০)

উল্লেখ্য, হাতের তালু সোজা করে পানি নিলে যতটুকু পানি তালুতে আটকে যায়; ততটুকু আয়তনকে এক দিরহাম ধরা হয়।

والله اعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন
শায়েখ উমায়ের কোব্বাদী