তালাক স্ত্রীকে না শুনিয়ে দেয়া এবং মনে মনে দেয়ার হুকুম

জিজ্ঞাসা–১৪৯৯: যদি কেউ স্ত্রীকে তালাক দিতে চায় তাহলে তালাক কি স্ত্রীর শুনা আবশ্যক? স্বামী মনে মনে স্ত্রীকে তালাক দিলে তালাক পতিত হবে কিনা? দয়া করে উত্তর দিলে উপকৃত হবো।–নূরুল হোসাইন। 

জবাব: তালাক স্ত্রীকে শুনিয়ে দিতে হবে কিংবা সাক্ষী রাখতে হবে; তালাকের ক্ষেত্রে এজাতীয় কোনো শর্ত নেই। বরং ফকিহগণের ঐকমত্য হল, স্বামী যদি নির্জনে একা একা বসে তালাক দেয় তাহলেও তালাক হয়ে যায়। (রদ্দুল মুহতার ৪/৯৬, দারু আলামিল কুতুব, রিয়াদ, আল্মুহীতুল বুরহানী ৩/২১০)

তবে মুখে উচ্চারণ করা আবশ্যক। কেননা,  মুখে উচ্চারণ না করে শুধু চিন্তা করলে তালাক পতিত হয় না। (উমদাতুল কারী শরহুল বুখারি ২০/২৫৬)

আলমাউসুয়া’তুল ফিকহিয়া (২৩/২৯)– এসেছে,

فإذا نوى التّلفّظ بالطّلاق ثمّ لم يتلفّظ به : لم يقع بالاتّفاق ودليل الجمهور قول النّبيّ صلى الله عليه وسلم : ( إنّ اللّه تجاوز لأمّتي عمّا حدّثت به أنفسها ، ما لم تعمل أو تكلّم به )

‘কোন ব্যক্তি তালাকের নিয়ত করেছে, অতপর মুখে উচ্চারণ করে নি, তাহলে সকলের মতে তালাক হবে না। কেননা রাসুলুল্লাহ বলেছেন, আল্লাহ তাআলা আমার উম্মতের মনের কথাগুলো ক্ষমা করেন, যতক্ষণ পর্যন্ত তা বাস্তবে করা হয় না কিংবা মুখে উচ্চারণ করা হয় না।’

والله أعلم بالصواب