তাশাহহুদ পড়ার পরে ওজু ভেঙ্গে গেলে

জিজ্ঞাসা-১০:জামাতে ইমামের সাথে নামাজ পড়ার সময় তাশাহহুদ পড়ার পরে ওজু ভেঙ্গে গেলে নামায কি আবার পড়ে দিতে হবে?–Mohammad Mohammad

জবাব : যদি সুনিশ্চিত ধারণা হয় যে, ওজু ভেঙ্গে গেছে তাহলে নামায ছেড়ে কোনোরূপ কথা না বলে সরাসরি কাতার ভেদ করে অজু করতে চলে যাবে। অজু করে ফিরে এসে ইমামের সঙ্গে নামাজে যোগদান করবে। ইমামের সালাম ফিরানোর পর সে উঠে দাঁড়িয়ে বাকি নামাজ যথারীতি আদায় করবে। অজু করে ফিরে আসতে আসতে যদি ইমামের নামাজ শেষ হয়ে যায়, তবে সে একাকি অবশিষ্ট নামাজ আদায় করবে। তবে শর্ত হচ্ছে এ সময় কোনো প্রকার কথা বলা যাবে না। কথা বললে পূর্ণ নামাজ আদায় করতে হবে।–ফিকহুল ইবাদাত আলাল মাযহাবিল হানাফী,মাকতাবা শামেলা খ.1 পৃ.110
উল্লেখ্য, শুধু ধারণার উপর নামায ছাড়া যাবে না।
أَنَّ مُحَمَّدَ بْنَ عَمْرِو بْنِ عَطَاءٍ حَدَّثَهُ قَالَ رَأَيْتُ السَّائِبَ يَشُمُّ ثَوْبَهُ فَقُلْتُ لَهُ مِمَّ ذَاكَ فَقَالَ إِنِّي سَمِعْتُ رَسُولَ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ يَقُولُ لَا وُضُوءَ إِلَّا مِنْ رِيحٍ أَوْ سَمَاعٍ
হযরত মুহাম্মদ বিন আমর বিন আতা বলেন,আমি একদা সায়েব বিন ইয়াজিদ (রা.)কে কাপড়ের ঘ্রাণ নিতে দেখে জিজ্ঞেস করলাম,এটা কি? তখন তিনি বললেন,রাসূল সা. ইরশাদ করেছেনঃ অজু করা আবশ্যক হয় না বাতাস বা [বাতকর্মের] আওয়াজ ছাড়া। –মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং-১৫৫০৬, সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদীস নং-৫১২, মুসান্নাফ ইবনে আবী শাইবা, হাদীস নং-৭৯৯৮

والله اعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন
শায়েখ  উমায়ের কোব্বাদী