তেলাওয়াতের সেজদা একসঙ্গে অনেকগুলো জমা হলে করণীয়

জিজ্ঞাসা–১৬০০: আসসালামু আলাইকুম। শায়খ, আমি অনেকদিন যাবৎ কুরআন পাঠ করছি। কিন্তু সিজদার আয়াতগুলো খেয়াল না করায় সিজদা আদায় করা হয় নি। এখন ২৭ পারায় থাকা অবস্থায় খেয়াল রাখার চেষ্টা করছি। আমি এখনো ৩ টা সিজদার আয়াত পাবো। প্রশ্ন হল, আমি কি বাকি ৩ পারা পড়ার সাথে সাথে ৩ টা সিজদা আদায় করে তারপর কুরআন পাঠ শেষে বাকি ১১ টা আদায় করব নাকি ১১ সিজদা আদায় করে বাকি ৩ পারা সিজদা আদায়ের মাধ্যমে শেষ করব? উত্তর দিলে উপকৃত হব। বারাকাল্লাহু ফিক।–Nur Uddin Rafi

জবাব: وعليكم السلام ورحمة الله

প্রিয় প্রশ্নকারী ভাই, আপনার জিম্মায় তেলাওয়াতের সেজদা যেগুলো রয়ে গেছে, সেগুলো যত দ্রুত সম্ভব আদায় করে নিন। কেননা, জীবনের যে কোনো সময় এগুলো আদায় করতে হবে; অন্যথায় গুনাহগার হবেন। (শরহুল মুনইয়া ৫০১ ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/১৩৪ ফাতাওয়া খানিয়া ১/১৫৮)

তারপর যখন সেজদার যে আয়াত তেলাওয়াত করবেন তখন বিলম্ব না করে ওই সেজদা করবেন। কেননা, তেলাওয়াতের সেজদা বিলম্ব না করে সেজদার আয়াতের পরেই আদায় করা উচিত।

হাদিস শরিফে এসেছে, আব্দুল্লাহ ইবনু উমর রাযি. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন,

كانَ النبيُّ ﷺ يَقْرَأُ السَّجْدَةَ ونَحْنُ عِنْدَهُ، فَيَسْجُدُ ونَسْجُدُ معهُ، فَنَزْدَحِمُ حتَّى ما يَجِدُ أحَدُنَا لِجَبْهَتِهِ مَوْضِعًا يَسْجُدُ عليه

নবী সেজদার আয়াত তেলাওয়াত করতেন এবং আমরা তাঁর নিকট থাকতাম, তখন তিনি সেজদা করতেন এবং আমরাও তাঁর সঙ্গে সেজদা করতাম। এতে এত ভীড় হতো যে, আমাদের মধ্যে কেউ কেউ সেজদা করার জন্য কপাল রাখার জায়গা পেত না। (বুখারী ১০৭৬)

والله أعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

sixteen − 3 =