নামাজের জামাত দুই জন মিলে করা যায়?

জিজ্ঞাসা–১৪৯০: আমি ও আমার ছোটভাই মোট দুই জন ব্যাক্তি দ্বারা কি জামাত অনুষ্ঠিত করা যায়? MD OMOUR FARUK

জবাব: সর্বনিম্ন দুইজন হলেই জামাত করে নামাজ আদায় করা যায়। যদি একজনই মুক্তাদী হয়, বালেগ পুরুষ হোক অথবা না-বালেগ বালক হোক; ইমামের ডান দিকে একটু পেছনে তার দাঁড়ানো উচিত। একজন মুক্তাদীর ইমামের পেছনে বা বাঁয়ে দাঁড়ানো মাকরুহ। (আসান ফিকাহ খ. ০১, জামায়াতে নামাযের বর্ণনা)

রাসূলুল্লাহ বলেছেন,

صَلاةُ الرَّجُلِ مَعَ الرَّجُلِ أَزْكَى مِنْ صَلاتِهِ وَحْدَهُ ، وَصَلاةُ الرَّجُلِ مَعَ الرَّجُلَيْنِ أَزْكَى مِنْ صَلاتِهِ مَعَ الرَّجُلِ ، وَمَا كَانُوا أَكْثَرَ فَهُوَ أَحَبُّ إِلَى اللَّهِ عَزَّ وَجَلَّ

নিশ্চয় দু’জনের জামাত একাকী নামাজ আদায়ের চেয়ে উত্তম। তিনজনের জামাত দু’জনের জামাতের চেয়ে উত্তম। জামাতে লোক সংখ্যা যত বেশী হবে মহান আল্লাহর নিকট তা ততই বেশি পছন্দনীয়। (নাসায়ী ৮৪৩ আবু দাউদ ৫৫৪)

তবে পুরুষের জন্য মসজিদের জামাতে নামায পড়া জরুরি। বিনা ওযরে ফরয নামায ঘরে আদায় করা ঠিক নয়। একাধিক হাদীসে এ ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা এসেছে এবং কঠোরভাবে সতর্ক করা হয়েছে। যেমন এক হাদীসে এসেছে, রাসূলুল্লাহ বলেন,

لقَدْ هَمَمْتُ أنْ آمُرَ بالصَّلاةِ فَتُقامَ، ثُمَّ أُخالِفَ إلى مَنازِلِ قَوْمٍ لا يَشْهَدُونَ الصَّلاةَ، فَأُحَرِّقَ عليهم

আমি ইচ্ছা করেছিলাম যে, নামাজ আদায় করার আদেশ করব। নামজে দাঁড়ানোর পর যে সম্প্রদায় (মসজিদে) নামাজে উপস্থিত হয় না, আমি তাদের বাড়ী গিয়ে তা জ্বালিয়ে দেই। (বুখারী ২৪২০)

والله أعلم بالصواب