নামাজে সানা কখন পড়তে হয়?

জিজ্ঞাসা–১১৫৮: আসসালামুআলাইকুম। আচ্ছা নামাজে কি প্রতি রাকাতে না শুধু প্রথম রাকাতে সানা পড়ব? এটা কি আর কেনো রাকাতে পড়া লাগবেনা? নামাজে সানা পড়ার নয়ম কি?–ইব্রাহিম।

জবাব: وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

নামাজে আল্লাহু আকাবার বলে নিয়ত বাঁধার পর প্রথম কাজ হলো সানা পড়া। এজন্য একে ইস্তেফতাহ তথা শুরু করার দোয়া বলা হয়। আর এটা পুরা নামাজে একবারই পড়তে হয়, একাধিকবার পড়ার নিয়ম নেই। কেননা, আবূ সাঈদ খুদরী রাযি. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ ﷺ নামাজ শুরু করে (তাকবীরে তাহরীমার পর) বলতেন–

سُبْحَانَكَ اَللَّهُمَّ وَ بِحَمْدِكَ وَ تَبَارَكَ اسْمُكَ وَ تَعَالِىْ جَدُّكَ وَ لَا اِلَهَ غَيْرُكَ

(অর্থ, হে আল্লাহ! আমি আপনার সপ্রশংস পবিত্রতা ঘোষণা করছি, আপনার নাম বরকতপূর্ণ, আপনার মাহাত্ন সুউচ্চ এবং আপনি ব্যতীত কোন ইলাহ নেই)। (সহীহ বুখারী ৮০৪)

উল্লেখ্য, কেউ একা পড়ুক বা জামাতে নামাজ পড়ুক–উভয় অবস্থায় সানা পড়া সুন্নাত। ইমাম আস্তে কেরাত পড়া অবস্থায় ইমামের সঙ্গে নিয়ত বেঁধে সানা পড়তে পারে তাতে কোনো অসুবিধা নেই। আর ইমাম জোরে কেরাত পড়া অবস্থায় কেরাত শুনা ফরজ বিধায় তখন সানা পড়া নিষেধ। কিন্তু এক্ষেত্রে অনেকের যে ভুলটা হয়ে থাকে তা হলো, ইমামকে যদি রুকুতে পায় তাহলে প্রথমে তাকবির বলে হাত বাঁধে তারপর দ্রুত সানা পড়ে রুকুতে যায়। অনেক সময় সানা পড়তে পড়তে ইমামের রুকু শেষ হয়ে যায় ফলে ওই রাকাত ছুটে যায়। এটা ঠিক নয়। এ অবস্থায় সানা পড়তে হবে না, হাতও বাঁধতে হবে না।

والله اعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন
শায়েখ উমায়ের কোব্বাদী