নারী তার মাহরাম পুরুষদের সামনে কতটুকু প্রকাশ করতে পারবে?

জিজ্ঞাসা–১৬৩১: মাহরাম ব্যক্তিদের সামনে একজন নারীর পোশাক, পর্দা এবং সাজসজ্জা শরীয়তের দৃষ্টিতে কেমন হবে?–নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক।

জবাব:  একজন নারী শালীনতা বিরোধী না হয় এমন যেকোনো পোশাক তার মাহরাম পুরুষের সামনে পরতে পারবে এবং সাধারণতঃ বাড়িঘরে থাকাকালে ও গৃহস্থালির কাজ করতে গিয়ে যতটুকু উন্মুক্ত হয়ে পড়ে ততটুকু তার মাহরাম পুরুষের সামনে খোলা রাখতে পারবে। আর তা হচ্ছে, চেহারা, মাথা, গলা ও সীনা (স্তনের উপরের ও গলার নিচের মাঝামাঝি অংশ), হাতের কুনুই ও বাহু, পায়ের নলা। বুক, পিঠ এবং অনুরূপ অঙ্গগুলো তার মাহরাম পুরুষের সামনে খোলা রাখতে পারবে না।

আল্লাহ তাআলা বলেন,

وَلا يُبْدِينَ زِينَتَهُنَّ إِلا لِبُعُولَتِهِنَّ أَوْ آبَائِهِنَّ أَوْ آبَاءِ بُعُولَتِهِنَّ أَوْ أَبْنَائِهِنَّ أَوْ أَبْنَاءِ بُعُولَتِهِنَّ أَوْ إِخْوَانِهِنَّ أَوْ بَنِي إِخْوَانِهِنَّ أَوْ بَنِي أَخَوَاتِهِنَّ أَوْ نِسَائِهِنَّ

তারা যেন তাদের স্বামীগণ, পিতাগণ, স্বামীর পিতাগণ, ছেলেগণ, স্বামীর ছেলেগণ, ভাইগণ, ভাইয়ের ছেলেগণ, বোনের ছেলেগণ, আপন নারীগণ, তাদের মালিকানাধীন দাস, যৌনকামনা রহিত অধীনস্থ পুরুষ এবং নারীদের গোপন অঙ্গ সম্পর্কে অজ্ঞ শিশুরা ছাড়া কারো নিকট নিজেদের সাজসজ্জা (সাজসজ্জার অঙ্গগুলো) প্রকাশ না করে। ( সূরা নূর ৩১)

উক্ত আয়াতের তাফসিরে ইমাম আবু বকর জাসসাস রহ. বলেন,

ظاهره يقتضى إباحة إبداء الزينة للزوج ولمن ذكر معه من الآباء وغيرهم ومعلوم أن المراد موضع الزينة وهو الوجه واليد والذراع لأن فيها السوار والقلب والعضد وهو موضع الدملج والنحر والصدر موضع القلادة والساق موضع الخلخال فاقتضى ذلك إباحة النظر للمذكورين في الآية إلى هذه المواضع

এ বাণীর বাহ্যিক মর্মের দাবী হচ্ছে সাজসজ্জা স্বামীর জন্য এবং পিতাসহ অন্য যাদেরকে স্বামীর সাথে উল্লেখ করা হয়েছে তাদের সামনে প্রকাশ করা বৈধ। জ্ঞাতব্য, সাজসজ্জা দ্বারা উদ্দেশ্য হচ্ছে— সাজসজ্জার স্থান।

আর সে স্থানগুলো হচ্ছে চেহারা, হাত ও হাতের কুনুই— যা চুড়ি-বালা পরার স্থান। আর বাহু—যা বাজুবন্ধ পরার স্থান। আর গলা ও সীনা (স্তনের উপরের ও গলার নিচের মাঝামাঝি অংশ)—যা হার পরার স্থান। আর পায়ের নলা—যা পায়ের মল পরার স্থান। তাই এই আয়াতের দাবী হচ্ছে আয়াতে উল্লেখিত ব্যক্তিবর্গের জন্য উল্লেখিত স্থানগুলো দেখা বৈধ। (আহকামুল কুরআন ৫/১৭৪)

ইবন কুদামা রহ. বলেন,

وَيَحُوزُ لِلرَّجُلِ أَنْ يَنْظُرَ مِنْ ذَوَاتِ مَحَارِمِهِ إلَى مَا يَظْهَرُ غَالِبًا كَالرَّقَبَةِ وَالرَّأْسِ وَالْكَفَّيْنِ وَالْقَدَمَيْنِ وَنَحْوِ ذَلِكَ وَلَيْسَ لَهُ النَّظَرُ إلَى مَا يَسْتَتِرُ غَالِبًا، كَالصَّدْرِ وَالظَّهْرِ وَنَحْوِهِمَا

পুরুষের জন্য নিজের মাহরাম নারীদের ওই অংশের দিকে তাকানো জায়েয যা সাধারণত প্রকাশ পেয়ে যায়। যেমন, ঘাড়, মাথা, হাতের তালুদ্বয়, পায়ের পাতাদ্বয় এবং অনুরূপ অঙ্গগুলো। আর তার জন্য জায়েয নেই, তাদের ওই অংশের দিকে তাকানো যা সাধারণত ঢেকে রাখা হয়। যেমন, বুক, পিঠ এবং অনুরূপ অঙ্গগুলো। (আলমুগণী ৭/৯৭)

والله أعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × five =