নিজের দুধ নিজে পান করা কিংবা অন্যদেরকে পান করানো

জিজ্ঞাসা–১১৪৮: বাচ্চা স্তনের দুধ খেয়ে শেষ করতে পারছে না। ন্তনে অতিরিক্ত দুধ থাকার কারণে পোষাক ভিজে যাচ্ছে এ ক্ষেত্রে অতিরিক্ত দুধ বের করে সে মহিলা খেতে পারবে কী বা অন্য কাউকে খাওয়াতে পারবে কি না ফেলে দিতে হবে?–Mohammad Ali

জবাব: দু’বছর বয়সের পর মানুষের দুধ পান করা হারাম। সুতরাং প্রশ্নেল্লেখিত মহিলা নিজের দুধ নিজে পান করতে পারবে না এবং অন্যকেও পান করাতে পারবে না; বরং প্রয়োজনে ফেলে দিবে। আদ্দুররুল মুখতার-এসেছে,

ولم يبح الإرضاع بعد مدته حرام لأنه جزاء الآدمي، والانتفاع به غير ضرورة حرام على الصحيح

সময় সীমা অতিক্রান্ত হওয়ার পর দুধ পান করানো জায়েয নেই। কেননা, দুধ মানুষের অংশ। আর বিশুদ্ধ মতানুযায়ী বিনাপ্রয়োজনে মানুষের অংশ ব্যবহার করা হারাম। (আদ্দুররুল মুখতার ৪/৩৯৭)

এর দলিল হল, সন্তানকে দুধ পান করানোর মেয়াদকাল আল্লাহ তাআলা ঠিক করে দিয়ে বলেছেন,

وَ الْوَالِدٰتُ یُرْضِعْنَ اَوْلَادَهُنَّ حَوْلَیْنِ كَامِلَیْنِ لِمَنْ اَرَادَ اَنْ یُّتِمَّ الرَّضَاعَةَ

মায়েরা তাদের সন্তানদের পূর্ণ দু বছর দুধ পান করাবে। এ সময়কাল তাদের জন্য, যারা দুধ পান করানোর মেয়াদ পূর্ণ করতে চায়। (সূরা বাকারা ২৩৩)

সুতরাং যদি কোনো ব্যক্তি আল্লাহর দেয়া উক্ত সীমা লঙ্ঘন করে তাহলে তা হারাম হবে। কেননা, আল্লাহ তাআলা বলেন,

وَمَن يَتَعَدَّ حُدُودَ اللَّـهِ فَأُولَـٰئِكَ هُمُ الظَّالِمُونَ

যারা আল্লাহ কর্তৃক নির্ধারিত সীমা লঙ্ঘন করবে, তারাই জালেম। (সুরা বাকারা ২২৯)

والله اعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন
শায়েখ উমায়ের কোব্বাদী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × five =