পরপুরুষের সাথে কথা বলা যাবে কি?

জিজ্ঞাসা-৩৫:পর্দার সহিত মেয়েরা সবার সাথে কথা বলতে পারে কি?–আমার বাড়ি কবর

জবাব : যদি একান্ত প্রয়োজন হয় ,সেই সাথে গোনাহে লিপ্ত হবার সম্ভাবনা না থাকে, তাহলে পরপুরুষের সঙ্গে পর্দার আড়াল থেকে কথা বলা জায়েজ আছে। বিনাপ্রয়োজনে পরপুরুষের সাথে কথা বলা জায়েজ হবে না।
আল্লাহ তাআলা বলেন ,’’আর তোমরা তাঁর [রাসূলুল্লাহ ( সা.)-এর] স্ত্রীগণের কাছে কিছু চাইলে পর্দার আড়াল থেকে চাইবে। এটা তোমাদের অন্তরের জন্য এবং তাঁদের অন্তরের জন্য অধিকতর পবিত্রতার কারণ।‘’ -সূরা আহযাব-৫৩
বিখ্যাত তাফসীরবিদ ইমাম কুরতুবী রাহ. উক্ত আয়াতের আলোচনায় বলেন, উক্ত আয়াতে আল্লাহ তাআলা রাসূলুল্লাহ ( সা.)-এর স্ত্রীদের কাছে কোনো প্রয়োজনে পর্দার আড়াল থেকে কিছু চাওয়া বা কোনো মাসআলা জিজ্ঞাসা করার অনুমতি দিয়েছেন। সাধারণ নারীরাও উপরোক্ত হুকুমের অন্তর্ভুক্ত। -তাফসীরে কুরতুবী ১৪/১৪৬
কিন্তু গোনাহে লিপ্ত হবার সম্ভাবনা থাকলে জায়েজ নেই।রাসূল ( সা.) ইরশাদ করেন, ‘’চোখের জিনা হল [হারাম] দৃষ্টিপাত। কর্ণদ্বয়ের জিনা হল, [গায়রে মাহরামের যৌন উদ্দীপক] কথাবার্তা মনযোগ দিয়ে শোনা। জিহবার জিনা হল, [গায়রে মাহরামের সাথে সুড়সুড়িমূলক] কথোপকথন। হাতের জিনা হল, [গায়রে মাহরামকে] ধরা বা স্পর্শকরণ। পায়ের জিনা হল, [খারাপ উদ্দেশ্যে] চলা। অন্তর চায় এবং কামনা করে আর লজ্জাস্থান তাকে বাস্তবে রূপ দেয় [যদি জিনা করে] এবং মিথ্যা পরিণত করে [যদি অন্তরের চাওয়া অনুপাতে জিনা না করে]’’। –সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-২৬৫৭, মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং-৮৯৩২
তবে পরপুরুষের সঙ্গে পর্দার আড়াল থেকে কথা বলার সময় কণ্ঠস্বর কঠোর রাখবে, সুমিষ্ট মোলায়েম স্বরে নয়l হযরত আয়েশা (রা) এর নিকট মাসয়ালা বা হাদিসের প্রয়োজনে অন্যান্য সাহাবীগণ আসলে, তিনি মুখের ওপর হাত রেখে কণ্ঠ বিকৃত করে পর্দার আড়ালে থেকে কথা বলতেন যেন কারো অন্তর ব্যাধিগ্রস্থ না হয় l -তাফসীরে কুরতুবী ১৪/১৪৬

والله اعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন
শায়েখ উমায়ের কোব্বাদী