পুরুষ ডাক্তারের মাধ্যমে সন্তান ডেলিভারি করানো যাবে কি?

জিজ্ঞাসা–১১৬২: ডেলিভারির জন্য কি হাসপাতাল গিয়ে কোনো পুরুষ ডাক্তার এর মাধ্যমে কি ডেলিভারি করানো যাবে?–আহমেদ।

জবাব: যতক্ষণ পর্যন্ত মহিলা ডাক্তার কিংবা মহিলা নার্সের মাধ্যমে সন্তান ডেলিভারি করার সুযোগ থাকে, ততক্ষণ পর্যন্ত পুরুষ ডাক্তারের কাছে যাওয়া জায়েয হবে না । হ্যাঁ, যদি এ বিষয়ে অভিজ্ঞ মহিলা ডাক্তার কিংবা নার্স না পাওয়া যায় তাহলে অনন্যোপায় হয়ে পুরুষ ডাক্তার বা নার্সের সাহায্য নেয়া জায়েয রয়েছে। এতে গুনাহ হবে না। কারণ এ ছাড়া আর বিকল্প নাই।

তবে এক্ষেত্রে পুরুষ ডাক্তারের জন্য নারীর চিকিৎসার যে সকল নীতিমালা রয়েছে এসকল নীতিমালার প্রতি পূর্ণমত্রায় খেয়াল রাখতে হবে। অর্থাৎ–

ক) যথাসম্ভব পর্দা রক্ষা করে চলতে হবে। শুধু চিকিৎসার প্রয়োজনে যতটুকু দেখা বা স্পর্শ করা লাগে শুধু ততটুকুর মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে।

খ) মহিলা রোগীর সাথে নির্জনে এক কক্ষে অবস্থান করবে না।

হাদিস শরিফে এসেছে, রাসূলুল্লাহ ﷺ বলেছেন,

مَن كان يؤمنُ باللهِ واليومِ الآخرِ فلا يخلوَنَّ بامرأةٍ ليسَ معها ذو مَحرَمٍ منها ، فإنَّ ثالثَهما الشَّيطانُ

যে ব্যক্তি আল্লাহ এবং শেষ দিবসের প্রতি বিশ্বাস রাখে, সে যেন কোন পরনারীর সাথে নির্জন না হয় যখন তার মাঝে এবং সে নারীর মাঝে কোন মাহরাম পুরুষ না থাকে। কেননা, অন্যথায় তাদের মাঝে তৃতীয় জন হবে শয়তান। (মুসনাদে আহমাদ ১৬৬৫১)

ইসলামী ফিকাহ একাডেমি থেকে একটি সিদ্ধান্তে এ বিষয়ে বলা হয়েছে–

الأصل أنه إذا توافرت طبيبة متخصصة يجب أن تقوم بالكشف على المريضة ، وإذا لم يتوافر ذلك فتقوم بذلك طبيبة غير مسلمة ثقة ، فإن لم يتوافر ذلك يقوم به طبيب مسلم ، وإن لم يتوافر طبيب مسلم يمكن أن يقوم مقامه طبيب غير مسلم ، على أن يطّلع من جسم المرأة على قدر الحاجة في تشخيص المرض ومداواته وألا يزيد عن ذلك وأن يغض الطرف قدر استطاعته ، وأن تتم معالجة الطبيب للمرأة هذه بحضور محرم أو زوج أو امرأة ثقة خشية الخلوة

শরিয়তের মূল বিধান হচ্ছে- বিশেষজ্ঞ মহিলা ডাক্তার মহিলা রোগীর চেক-আপ করবেন। যদি মুসলিম মহিলা ডাক্তার না পাওয়া যায় তাহলে বিশ্বস্ত অমুসলিম মহিলা ডাক্তার মহিলা রোগীর চেক-আপ করবেন। যদি অমুসলিম মহিলা ডাক্তারও না পাওয়া যায় তাহলে মুসলিম পুরুষ ডাক্তার মহিলা রোগীর চেক-আপ করবেন। যদি মুসলিম ডাক্তারও না পাওয়া যায় তাহলে অমুসলিম পুরুষ ডাক্তার সে দায়িত্ব পালন করবেন। তবে শর্ত হল, পুরুষ ডাক্তার রোগিনীর শরীরের ততটুকু দেখবেন যতটুকু দেখা রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসার স্বার্থে প্রয়োজন; এর বেশি দেখবে না এবং সাধ্যমত দৃষ্টি অবনত রাখবে। পুরুষ ডাক্তারকে রোগিনীর চিকিৎসা করতে হবে রোগিনীর মাহরাম কিংবা স্বামী কিংবা কোন বিশ্বস্ত নারীর উপস্থিতিতে; যাতে করে নিষিদ্ধ নির্জনবাস না ঘটে। (একাডেমীর জার্নাল থেকে সংকলিত ৮/১/৪৯)

والله اعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন
শায়েখ উমায়ের কোব্বাদী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 + 6 =