বিতির নামাজে দোয়া কুনুত দেখে দেখে পড়া

জিজ্ঞাসা–১১৪৫: আমার বিতির নামাযের দোয়া কুনুত মুখস্থ নাই। এজন্য আমি একটা কাগজে লিখে সেটা সামনে রাখি আর দেখে দেখে পড়ি। এভাবে পড়লে নামাযে কি হবেনা?–নাজমুল আহসান রুহান।

জবাব: এমনটি করা যাবে না। কেননা, এর দ্বারা নামাজের মনোযোগ ও একাগ্রতা নষ্ট হয়। হাদীস শরীফে এসেছে, রাসূলুল্লাহ ﷺ বলেছেন,

وَإِنَّ اللَّهَ أَمَرَكُمْ بِالصَّلاَةِ فَإِذَا صَلَّيْتُمْ فَلاَ تَلْتَفِتُوا فَإِنَّ اللَّهَ يَنْصِبُ وَجْهَهُ لِوَجْهِ عَبْدِهِ فِي صَلاَتِهِ مَا لَمْ يَلْتَفِتْ

আল্লাহ্ তাআলা তোমাদেরকে নামাজের নির্দেশ দিয়েছেন, সুতরাং তোমরা যখন নামাজ আদায় করবে তখন এদিক-সেদিক তাকাবে না। কেননা যতক্ষণ বান্দা এদিক-সেদিক না তাকায় ততক্ষণ নামাজে আল্লাহ্ তাআলা তাঁর নেক দৃষ্টি তাঁর বান্দার চেহারার দিকে নিবিষ্ট করে রাখেন। (তিরমিজী ২৮৬৩)

সুতরাং আপনি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দোয়া কুনূত মুখস্থ করে নিন। আর দোয়া কুনূত মুখস্থ করার আগ পর্যন্ত নিম্নোক্ত দুআটি পড়তে পারেন-

رَبَّنَاۤ اٰتِنَا فِی الدُّنْیَا حَسَنَةً وَّ فِی الْاٰخِرَةِ حَسَنَةً وَّ قِنَا عَذَابَ النَّارِ

অথবা কয়েকবার أَللّهُمَّ اغْفِرْ لَنَا বা أَسْتَغْفِرُ اللهَ পড়বেন।

(ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/১৭০; আলমুহীতুল বুরহানী ২/২৭০; ফাতাওয়া তাতারখানিয়া ২/৩৪৪; আলবাহরুর রায়েক ২/৪২-৪৩; রদ্দুল মুহতার ২/৭)

ইমাম নববী রহ. বলেন,

واعلم أن القنوت لا يتعين فيه دعاء على المذهب المختار ، فأي دعاء دعا به حصل القنوت ولو قنت بآية ، أو آيات من القرآن العزيز وهي مشتملة على الدعاء حصل القنوت ، ولكن الأفضل ما جاءت به السنة ..

জেনে রাখুন, অগ্রগণ্য মাযহাব মতে, কুনূতের জন্য সুনির্দিষ্ট কোনো দোয়া নেই। তাই যে কোনো দোয়া পড়লে এর দ্বারা কুনূত (আদায়) হয়ে যাবে; এমনকি দোয়াসম্বলিত এক বা একাধিক কোরআনের আয়াত পড়লেও কুনূতের উদ্দেশ্য হাছিল হয়ে যাবে। তবে, হাদিসে যে দোয়া এসেছে সেটা পড়া উত্তম। (ইমাম নববীর আল-আযকার ৫০)

والله اعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন
শায়েখ উমায়ের কোব্বাদী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five + six =