মাজারে নামাজ পড়া ও মান্নত করা…

জিজ্ঞাসা–৬৪৫: মহিলাদের দেখা যায় মাজারে যায় নামাজের উদ্দেশ্যে। আবার দেখা যায় কিছু মানতও করে আসে। এগুলো কি শরিয়ত সম্মত?  দয়া করে জানাবেন।–ইকরামুল হক, কিশোরগঞ্জ।

জবাব: নারীর জন্য নামাজের উদ্দেশ্যে মাজারে যাওয়া সম্পূর্ণ হারাম। কেননা, নারীর জন্য নামাজের স্থান তার ঘর-বাড়ি। এমনকি তার জন্য নামাজের উদ্দেশ্যে মসজিদের যাওয়ারও সাধারণ অনুমতি নেই। বরং মসজিদের যাওয়ার অনুমতি দেয়া হয় কঠোর কিছু শর্ত সাপেক্ষে। বিস্তারিত দেখুন, জিজ্ঞাসা নং–১৬৬

হাদিস শরিফে এসেছে, রাসুলুল্লাহ উম্মে হুমাইদ আস সাআদী রাযি.-কে বলেছিলেন, وَصَلَاتُكِ فِي دَارِكِ خَيْرٌ لَكِ مِنْ صَلَاتِكِ فِي مَسْجِدِ قَوْمِكِ ‘আর তোমার বাড়িতে নামাজ আদায় করা কওমের (এলাকার ) মসজিদে আদায় করার চেয়ে উত্তম।’(মুসনাদে আহমাদ ৩৭/৪৫)

আয়েশা রাযি. বলেন,  لَوْ أَدْرَكَ رَسُولُ اللَّهِ ﷺ مَا أَحْدَثَ النِّسَاءُ لَمَنَعَهُنَّ الْمَسْجِدَ كَمَا مُنِعَهُ نِسَاءُ بَنِي إِسْرَائِيلَ ‘যদি রাসুলুল্লাহ বর্তমানকালের মহিলাদের অবস্থা দেখতেন তাহলে তাদেরকে মসজিদে আসতে নিষেধ করতেন। যেমন নিষেধ করা হয়েছিল বনী ইসরাইলের মহিলাদেরকে।’ (সহীহ বুখারী ১/২৯৬)

অনুরূপভাবে মাজারে মান্নত করাও হারাম।  কেননা, মান্নত পূরণ করা একটি ইবাদত। তাই মান্নত করতে হবে শুধুমাত্র আল্লাহ তাআলার উদ্দেশ্যে। মান্নত পূরণ করতে হবে তারই সন্তুষ্টি অর্জনের নিয়তে। সুতরাং কোনো মাযার বা পীরের নামে মান্নত করলে তা শিরক হবে। কেউ এমন মান্নত  করলেও তা পালন করা থেকে বিরত থাকা জরুরি। উপরন্তু উক্ত মান্নতের কারণে তওবা-ইস্তেগফার করা জরুরি। ( আলমুহীতুল বুরহানী ৬/৩৫২; আলবাহরুর রায়েক ২/২৯৮; বাদায়েউস সানায়ে ৪/২২৬; ফাতহুল কাদীর ৪/৩৭৪; আদ্দুররুল মুখতার ২/৪৩৯)

হাদিস শরিফে এসেছে, রাসুলুল্লাহ বলেছেন,

مَنْ نَذَرَ أَنْ يُطِيعَ اللَّهَ فَلْيُطِعْهُ ، وَمَنْ نَذَرَ أَنْ يَعْصِيَهُ فَلَا يَعْصِهِ

যে ব্যক্তি আল্লাহ তাআলার আনুগত্য করার মান্নত করে সে যেন (তা পূরণ করে) তাঁর আনুগত্য করে । আর যে অবাধ্যতার কোনো বিষয়ে মান্নত করে সে যেন তাঁর অবাধ্যতা না করে। (সহীহ বুখারী ৬৬৯৬)

والله اعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন
মাওলানা উমায়ের কোব্বাদী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

20 − 16 =