রূপার নিসাব পরিমাণ অর্থ থাকলে যাকাত দিতে হবে কি?

জিজ্ঞাসা–৯৬৭: আসসালামুআলাইকুম, সমস্ত প্রশংসা একমাত্র আল্লাহর জন্য। আমার প্রশ্ন হচ্ছে যাকাত দেওয়ার জন্য আমরা সাধারণ যে নিয়ম জানি যে সাড়ে সাত ভরি স্বর্ণ বা সাড়ে বায়ান্ন ভরি রূপা বা এর সমপরিমাণ অর্থ ১ বছর পর্যন্ত নিজের কাছে জমা থাকলে তাঁর জন্য যাকাত দেওয়া ফরজ। এখন আমার প্রশ্ন হলো, আমার সম্পদটা কি স্বর্ণ ও রূপা একত্রে করলে যে পরিমাণ অর্থ হয় সেই অনুযায়ী যাকাত ধার্য করবো নাকি শুধু সাড়ে সাত ভরি স্বর্ণের উপর বা শুধু সাড়ে বায়ান্ন ভরি রূপার উপর ধার্য করবো ? আমার যদি সাড়ে সাত ভরি স্বর্ণ না থাকে তাহলে কি রূপার পরিমাণ অনুযায়ী অর্থ থাকলে যাকাত আমার উপর ফরজ হবে কিনা? দ্রুত উত্তর পাওয়ার আসায় থাকলাম। যদি পারেন তাহলে আমার ইমেইলে উত্তরটি পাঠানোর জন্য অনুরোধ করছি। জাযাকাল্লাহু খাইরান।–Sadika Nusrat

জবাব: وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে রূপার নেসাবের হিসাব করে যাকাত দিতে হবে। স্বর্ণ-রূপার মূল্য ও নগদ অর্থ এক সাথে মিলিয়ে মোট সম্পদের চল্লিশ ভাগের এক ভাগ যাকাত আদায় করতে হবে। (হেদায়া : ১/১৯৬, আদদুররুল মুখতার : ২/৩০)

কেননা, যদি সোনা-রূপা, টাকা-পয়সা কিংবা বাণিজ্য-দ্রব্য- এগুলোর কোনোটি পৃথকভাবে নিসাব পরিমাণ না থাকে, কিন্তু এসবের একাধিক সামগ্রী এ পরিমাণ রয়েছে, যা একত্র করলে সাড়ে বায়ান্ন তোলা রূপার সমমূল্য বা তার চেয়ে বেশি হয় তাহলে এক্ষেত্রে সকল সম্পদ হিসাব করে যাকাত দিতে হয়।(মুসান্নাফে আবদুর রাযযাক হাদীস ৭০৬৬,৭০৮১; মুসান্নাফে ইবনে আবী শায়বা ৬/৩৯৩)

বিস্তারিত দেখুন, জিজ্ঞাসা নং–১৩৪

والله اعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন
মাওলানা উমায়ের কোব্বাদী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × two =