শব্দ করে হাঁসলে কি নামাজ ভেঙ্গে যায়?

জিজ্ঞাসা–১৩৪৯: নামাযে উচ্চস্বরে হাঁসলে নামায ভাঙ্গাটা কতটুকু যুক্তিসম্পন্ন বা এর দলিল কতটুকু সত্য?–Abu Yousuf

জবাব: ইচ্ছেকৃতভাবে কোনো ব্যক্তি যদি নামাজের মধ্যে শব্দ করে হাঁসে অথবা এমন জিনিস দেখে যা দেখে তার অট্টহাসি এসে গেছে, এই ক্ষেত্রে সব ওলামায়ে কেরামের বক্তব্য হলো, তার নামাজ বাতিল হয়ে যাবে। ইবনু কুদামা রহ. বলেন,

وإن ضحك فبان حرفان : فسدت صلاته ، وكذلك إن قهقه ولم يكن حرفان ، وبهذا قال جابر بن عبد الله وعطاء ومجاهد والحسن وقتادة والنخعي والأوزاعي والشافعي وأصحاب الرأي ، ولا نعلم فيه مخالفا

যদি এমনভাবে হাঁসে যে, দুই শব্দ প্রকাশ পেয়েছে, অনুরূপভাবে যদি অট্টহাসি দেয় তখন দুই শব্দ প্রকাশ না পেলেও–তার নামাজ নষ্ট হয়ে যাবে। সাহাবী জাবির ইবনু আব্দুল্লাহ রাযি. তাবিয়ী আতা রহ. মুজাহিদ রহ. হাসান রহ. কাতাদা রহ. ইবরাহীম নাখয়ী’ রহ. ও আওযায়ী’ রহ. শাফিঈ রহ. প্রমুখ এমনটি বলেছেন। এব্যাপারে কেউ বিরোধিতা করেছেন বলে আমাদের জানা নেই। (আলমুগনী ১/৭৪১)

হাদিস শরিফে এসেছে, আনাস রাযি. বলেন,

كَانَ رَسُولُ اللَّهِ –– يُصَلِّي بِنَا ، فَجَاءَ رَجُلٌ ضَرِيرُ الْبَصَرِ ، فَوَطِئَ فِي خَبَالٍ مِنَ الْأَرْضِ ، فَصُرِعَ ، فَضَحِكَ بَعْضُ الْقَوْمِ ، فَأَمَرَ رَسُولُ اللَّهِ –– مَنْ ضَحِكَ أَنْ يُعِيدَ الْوُضُوءَ وَالصَّلَاةَ

রাসূলুল্লাহ আমাদেরকে নিয়ে নামাজ পড়ছিলেন। তখন এক অন্ধ ব্যক্তি এসে পিচ্ছিল মাটিতে হোঁচট খেয়ে পড়ে গেল। তাতে কতক লোক হেসে দিলো (নামাজরত অবস্থায়)। যারা হেসেছিল রাসূলুল্লাহ তাদেরকে পুনরায় অজু করে নামাজ পড়ার নির্দেশ দিলেন। (দারাকুতনী ৫৮০)

والله اعلم بالصواب