শিরক থেকে বাঁচার দোয়া

জিজ্ঞাসা–১২৬৮: আসসালামুআলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহ। কথাবার্তার সময় না জেনে অনিচ্ছাকৃতভাবে শিরক হয়ে গেলে করণীয় কি? শিরক থেকে বাঁচার দোয়া টি কি জানতে চাই?–মোঃ হেলাল উদ্দিন।

জবাব: وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

এক. অনিচ্ছাকৃতভাবে উক্ত কুফরি কিংবা শিরকি বাক্য মুখ থেকে বের হয়ে যাওয়ার কারণে ঈমানের কোনো ক্ষতি হয় না। তবে ঈমান ও কুফরের ব্যাপারে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকা আবশ্যক। হাদিসে এসেছে, আব্দুল্লাহ ইবন আব্বাস রাযি. থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ ﷺ বলেছেন,

  إِنَّ اللَّهَ تَجَاوَزَ لِي عَنْ أُمَّتِي الْخَطَأَ وَالنِّسْيَانَ ، وَمَا اسْتُكْرِهُوا عَلَيْهِ

নিশ্চয় আল্লাহ আমার উম্মতের ভুল, বিস্মৃতি এবং বাধ্য হয়ে করা বিষয় ক্ষমা করেছেন। (ইবন মাজাহ ২০৪০)

দুই. শিরক থেকে বেঁচে থাকার জন্য আল্লাহ তাআলার নিকট প্রার্থনা করার উপায়ও রাসুলুল্লাহ ﷺ শিখিয়ে দিয়েছেন। হাদিস শরিফে এসেছে, মা’কাল ইবনু ইয়াসার রাযি. বলেন, রাসুলুল্লাহ ﷺ আবু বকর রাযি.-কে বলেছেন,

يا أبا بكرٍ ، لَلشِّركُ فيكم أخْفى من دبيبِ النَّملِ والذي نفسي بيدِه ، لَلشِّركُ أخْفى من دَبيبِ النَّملِ ، ألا أدُلُّك على شيءٍ إذا فعلتَه ذهب عنك قليلهُ و كثيرهُ ؟ قل : ااَللَّهُمَّ اِنِّىْ اَعُوْذُبِكَ اَنْ أُشْرِكَ بِكَ وَ اَنَا أَعْلَمُ وَ اَسْتَغْفِرُكَ لِمَا لَا أَعْلَمُ

হে আবু বকর! নিশ্চয় তোমাদের মাঝে শিরক পিপীলিকার পদধ্বনির চেয়ে সূক্ষ্ম। সেই সত্তার শপথ যাঁর হাতে আমার প্রাণ, শিরক পিপীলিকার পদধ্বনির চেয়ে সূক্ষ্ম। আমি কি আপনাকে এমন কিছু শিখিয়ে দেব না, যা বললে শিরকের অল্প ও বেশি সবই দূর হয়ে যাবে? আপনি বলুন,

ااَللَّهُمَّ اِنِّىْ اَعُوْذُبِكَ اَنْ أُشْرِكَ بِكَ وَ اَنَا أَعْلَمُ وَ اَسْتَغْفِرُكَ لِمَا لَا أَعْلَمُ

হে আল্লাহ, আমি সজ্ঞানে তোমার সঙ্গে শিরক করা থেকে তোমার কাছে আশ্রয় চাই এবং যা আমার অজ্ঞাত তা থেকেও তোমার কাছে ক্ষমা চাই। (সহিহ আলআদাবুল মুফরাদ ৫৫১)

والله اعلم بالصواب

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

11 + five =