সুদি ব্যাংকে ডিপিএস খোলা

জিজ্ঞাসা–৯৮৩: আমি অগ্রনী ব্যাংকে ১০ বছর মেয়াদী একটা ডিপিএস খুলেছি, এখন মনে প্রশ্ন জেগেছে কাজটা ঠিক করলাম কিনা? এই ডিপিএসটা কি আমি চালিয়ে নিবো নাকি বাদ দিবো। আমি খুবই উপকৃত হতাম প্রশ্ন টা উত্তর পেলে।–মো মেহেদী হাসান।

জবাব: প্রিয় প্রশ্নকারী ভাই, ঈমানের পূর্ণতার জন্য অপরিহার্য শর্ত হল, সুদ ও যাবতীয় হারাম পন্থা পরিহার করে বৈধ উপায় গ্রহণ করা। আল্লাহ তাআলা বলেন,

يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا لَا تَأْكُلُوا الرِّبَا أَضْعَافًا مُّضَاعَفَةً ۖ وَاتَّقُوا اللَّهَ لَعَلَّكُمْ تُفْلِحُونَ

হে ঈমানদারগণ! তোমরা চক্রবৃদ্ধিহারে সুদ খেয়ো না। আর আল্লাহকে ভয় করতে থাক, যাতে তোমরা কল্যাণ অর্জন করতে পারো। (সূরা আলি ইমরান ১৩০)

হাদিসে এসেছে-

لَعَنَ رَسُولُ اللهِ ﷺ آكل الربا وموكله وكاتبه وشاهديه، وقال : هم سواء.

আল্লাহর রসূল রাসূল ﷺ সুদখোর, সুদদাতা, সুদের লেখক এবং তার উপর সাক্ষীদ্বয়কে অভিশাপ করেছেন, আর বলেছেন, ওরা সকলেই সমান। (মুসনাদে আহমাদ, হাদিস নং-৩৮০৯)

অতএব আপনার উচিত, সুদী ব্যংকে কাজ করার জন্য আল্লাহ্‌র কাছে তওবা করা এবং যত দ্রুত সম্ভব এথেকে বের হয়ে এসে হালাল উপায় খুঁজে বের করা। এভাবে যদি তাওবা করেন তাহলে আশা করা যায়, আল্লাহ মাফ করবেন। কেননা, আল্লাহ তাআলা বলেন,

فَمَن جَاءهُ مَوْعِظَةٌ مِّن رَّبِّهِ فَانتَهَىَ فَلَهُ مَا سَلَفَ وَأَمْرُهُ إِلَى اللّهِ وَمَنْ عَادَ فَأُوْلَـئِكَ أَصْحَابُ النَّارِ هُمْ فِيهَا خَالِدُونَ

অতঃপর যার কাছে তার পালনকর্তার পক্ষ থেকে উপদেশ এসেছে এবং সে বিরত হয়েছে, পূর্বে যা হয়ে গেছে, তা তার। তার ব্যাপার আল্লাহর উপর নির্ভরশীল। আর যারা পুনরায় সুদ নেয়, তারাই জাহান্নামে যাবে। তারা সেখানে চিরকাল অবস্থান করবে। (সূরা বাকারা ২৭৫)

والله اعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন
মাওলানা উমায়ের কোব্বাদী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twenty − 1 =