স্বামী/স্ত্রীর মধ্যে মিলনের কল্পনা করা যাবে কি?

জিজ্ঞাসা–১৫৩২: আসসালামু আলাইকুম। স্ত্রী কাছে না থাকা অবস্থায় স্ত্রীকে নিয়ে যৌন সম্পর্কিত কল্পনা (যেমন, সে কাছে আসার পর কি কি রোমান্টিকতা করবে, তাকে কিভাবে আদর করবে ইত্যাদি) করা যাবে কি?–নাজমুল হাসান।

জবাব: وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

প্রিয় প্রশ্নকারী ভাই, স্বামী স্ত্রীকে নিয়ে কিংবা স্ত্রী স্বামীকে নিয়ে যৌনসম্পর্কিত কল্পনা করা নিষেধ নয়। তবে মাসআলাটির ক্ষেত্রে কিছু জরুরি বিষয় জেনে নেয়া উচিত। যেমন,

১. স্বামী-স্ত্রী সর্বদা কাছাকাছি থাকবে, এটাই শরিয়তে কাম্য। যদি স্ত্রী থেকে দূরে থাকার কারণে স্বামী বা স্ত্রী কোনো গুনাহে জড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা থাকে তাহলে চার মাসের কম সময়ও স্ত্রী থেকে দূরে থাকতে পারবে না। (ফাতাওয়ায়ে শামী ৪/৩৭৯; ফাতাওয়ায়ে মাহমুদিয়া ২৯/৪৮; আহসানুল ফাতাওয়া ১/৪০০)

উমর রাযি. তাঁর মেয়ে হাফসা রাযি.-কে জিজ্ঞেস করেছিলেন, এক জন নারী তার স্বামী ছাড়া কতদিন থাকতে পারে? তিনি উত্তর দিয়েছিলেন, ছয় মাস বা চার মাস। তারপর থেকে তিনি কোন সৈনিককে ছয় মাসের বেশি বাহিরে থাকতে দিতেন না। (মারেফাতুস সুনান ওয়াল আছার লিল বায়হাক্বী ১৪/২৪৯) 

২. যদিও মৌলিকভাবে স্বামী/স্ত্রীর মধ্যে মিলনের কল্পনা করা বৈধ; তবে এক্ষেত্রে পরিপূর্ণ সতর্ক থাকতে হবে যে, তা যেন এত বেশি প্রবল না হয় যে, তা পূরণ করার তীব্রতা দেখা দিবে এবং তাকে হারাম কাজ যেমন, পর্ণগ্র্যাফি বা এ জাতীয় নোংরা কাজের প্রতি টেনে নিয়ে যাবে।

৩. উক্ত পরিস্থিতিতে যৌন চাহিদাকে নিয়ন্ত্রণ রাখার বিষয়টিকে খুবই গুরুত্ব দিতে হবে। আর এ লক্ষে অধিকহারে রোজা রাখতে হবে, দৃষ্টির হেফাজত করতে হবে, ফেতনার পরিবেশ থেকে নিজেকে নিরাপদ দূরত্বে রাখতে হবে এবং নেক পরিবেশে অধিক সময় দেয়ার প্রতি অত্যাধিক যত্নশীল হতে হবে।

আল্লাহ তাআলা বলেন,

يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُواْ اتَّقُواْ اللّهَ وَكُونُواْ مَعَ الصَّادِقِينَ

হে ঈমানদারগণ, আল্লাহকে ভয় কর এবং সত্যবাদীদের সাথে থাক। (সূরা তাওবা ১১৯)

وَلا تَتَّبِعُوا خُطُوَاتِ الشَّيْطَانِ إِنَّهُ لَكُمْ عَدُوٌّ مُبِينٌ

আর শয়তানের পদাঙ্ক অনুসরণ করো না। নিশ্চয় সে তোমাদের জন্য সুস্পষ্ট শত্রু। (সূরা বাকারা ১৬৮)

والله أعلم بالصواب

Leave a Reply

Your email address will not be published.

one × four =