হস্তমৈথুনের কারণে গোসল ফরজ হয় কিনা?

জিজ্ঞাসা–১০৪৩: কেউ যুদি ভুলবশতঃ বা শয়তানের ধোঁকায় পড়ে হস্তমৈথুন করে ফেলে। এরপরে সে নামাজ আদায় করতে চায়, সে কি নামাজ আদায় করতে পারবে? উল্লেখ্য, নাপাকি কাপড়ে লাগে নাই।–আশিক পারভেজ।

জবাব: হস্তমৈথুনের কারণে বীর্য বের হলে গোসল ফরজ হয়। কেননা, রাসূলুল্লাহ ﷺ বলেছেন, فَإِذَا فَضَخْتَ الْمَاءَ فَاغْتَسِلْ যদি উত্তেজনা বশতঃ বীর্য নির্গত হয় তবে গোসল করবে। (আবুদাউদ ২০৬)

সুতরাং গোসল করে পবিত্র হওয়া ছাড়া নামায আদায় করা যাবে না। কেননা, আব্দুল্লাহ ইবন ওমর রাযি. থেকে বর্ণিত, রাসূল ﷺ বলেছেন,  لَا يَقْبَلُ اللَّهُ صَلَاةً إِلَّا بِطُهُورٍ পবিত্রতা ছাড়া আল্লাহ তাআলা নামায গ্রহণ করেন না। (সুনানে ইবনে মাজাহ ২৭২ সহীহ ইবনে খুজাইমা ০৯ সহীহ ইবনে হিব্বান ৩৩৬৬)

আর কাপড়ে যেহেতু নাপাকি লাগে নাই, তাই কাপড় না ধুলেও অসুবিধা নেই।

উল্লেখ্য, হস্তমৈথুন কোরআন সুন্নাহ ও সুস্থ বিবেকের নির্দেশ মতে হারাম ও কবিরা গুনাহ। সুতরাং এ থেকে তাওবা করতে হবে।

আব্দুল্লাহ ইবন আমর ইবন আস রাযি. থেকে বর্ণিত, রাসূল ﷺ বলেছেন,

سبعة لا ينظر الله عز وجل إليهم يوم القيامة ولا يزكيهم ويقول : ادخلوا النار مع الداخلين : الفاعل والمفعول به ، والناكح يده ، وناكح البهيمة ، وناكح المرأة في دبرها ، وناكح المرأة وابنتها ، والزاني بحليلة جاره ،والمؤذي لجاره حتى يلعنه 

‘সাত শ্রেণীর লোকের উপর আল্লাহ অভিশাপ বর্ষণ করেন, কিয়ামতের দিন এদের দিকে তাকাবেন না এবং এদেরকে জাহান্নামে প্রবেশের আদেশ দিবেন। এরা হল–সমকামী, হস্তমৈথুনকারী, জীবজন্তুর সাথে সঙ্গমকারী, স্ত্রীর সঙ্গে পুংমৈথুনকারী, কোন মহিলা ও তার কন্যাকে একসাথে বিবাহকারী, প্রতিবেশীর স্ত্রীর সাথে ব্যভিচারকারী এবং প্রতিবেশীকে এমন কষ্টদানকারী যে, যার কারণে সে তাকে অভিশাপ দেয় । তবে এরা যদি তাওবা করে তাহলে তারা সবাই হয়ত ক্ষমা পেতে পারে।’ (বাইহাকী, শুয়াবুল ঈমান৭/৩২৯)

والله اعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন
শায়েখ উমায়ের কোব্বাদী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

12 − seven =