হিন্দু মেয়ে মুসলিম হওয়ার পর তাকে বিবাহ করার বিধান

জিজ্ঞাসা–১৪০৩:আমি একটি হিন্দু মেয়েকে মুসলিম বানিয়েছি (আলহামদুলিল্লাহ)। এখন আমরা একে অপরকে বিয়ে করতে চাই, মেয়ের কোন অভিভাবক নেই, আর আমার অভিভাবক এখন বিয়েতে সম্মত নয়। এমতাবস্থায় আমরা বিয়ে করে নিলে বিয়ে শুদ্ধ হবে কি?–আব্দুর রহমান।

জবাব: ইসলাম গ্রহণকারী কোনো মেয়েকে বিবাহ করার ক্ষেত্রে তার অভিভাবকের প্রয়োজন নেই। ইবনু কুদামা রহ. বলেন,

أما الكافر فلا ولاية له على مسلمة بحال ، بإجماع أهل العلم

আলেমদের ঐকমত্য অনুযায়ী কোনো কাফির কোনো অবস্থাতেই কোনো মুসলিম মেয়ের অভিবাবক হতে পারে না। (আল-মুগনী ৯/৩৭৭)

সুতরাং দুইজন প্রাপ্তবয়স্ক সমঝদার স্বাক্ষীর সামনে প্রাপ্তবয়স্ক পাত্র ও পাত্রীর একজন প্রস্তাব দিলে এবং অপরপক্ষ তা গ্রহণ করে নিলে ইসলামী শরীয়াহ মোতাবেক বিবাহ শুদ্ধ হয়ে যাবে। কেননা,আল্লাহ তাআলা বলেছেন,

فَلَا جُنَاحَ عَلَيْكُمْ فِيمَا فَعَلْنَ فِي أَنفُسِهِنَّ بِالْمَعْرُوفِ

অর্থাৎ, মহিলারা নিজেদের ব্যাপারে (বিয়ের ক্ষেত্রে) নীতিসঙ্গত ব্যবস্থা নিলে তোমাদের কোনো গুনাহ নেই। ( সূরা বাকারা ২৩৪)

আব্দুল্লাহ বিন আব্বাস রাযি. থেকে বর্ণিত, রাসূল ইরশাদ বলেছেন,

الْأَيِّمُ أَحَقُّ بِنَفْسِهَا مِنْ وَلِيِّهَا

মেয়ে তার ব্যক্তিগত বিষয়ে অভিভাবকের চেয়ে অধিক হকদার। (মুয়াত্তা মালিক ৮৮৮, সহীহ মুসলিম ১৪২১, মুসনাদে আহমাদ ১৮৮৮, সুনানে আবু দাউদ ২০৯৮, সুনানে দারেমী ২২৩৪, সুনানে তিরমিজী ১১০৮, সুনানে নাসায়ী ৩২৬০, সহীহ ইবনে হিব্বান৪০৮৪, সুনানে দারাকুতনী ৩৫৭৬)

والله اعلم بالصواب