সাদা সামান্য আঠালো জিনিস বের হলে কি গোসল ফরজ হবে?

জিজ্ঞাসা–৩৪৭: ফজরের নামাজের আগে স্বপ্নদদোষ হয় নি কিন্তু সাদা সামান্য পরিমাণ আঠালো জিনিস বের হলে কি নামাজ পড়া যাবে গোছল ছাড়া?– riaz: [email protected]

জবাব: সাদা সামান্য আঠালো জিনিস বের হলে গোসল ফরজ হয়না। কেননা, এটা মযী, যা বের হলে ওযু করতে হয়; গোসল নয়। আর এটা নাপাক বিধায় শরীরে বা কাপড়ে লাগলে ধুয়ে ফেলা আবশ্যক ।

عَنْ سَهْلِ بْنِ حُنَيْفٍ، قَالَ كُنْتُ أَلْقَى مِنَ الْمَذْىِ شِدَّةً وَكُنْتُ أُكْثِرُ مِنْهُ الاِغْتِسَالَ فَسَأَلْتُ رَسُولَ اللَّهِ ﷺ عَنْ ذَلِكَ فَقَالَ :‏ إِنَّمَا يُجْزِيكَ مِنْ ذَلِكَ الْوُضُوءُ ‏‏.‏ قُلْتُ يَا رَسُولَ اللَّهِ فَكَيْفَ بِمَا يُصِيبُ ثَوْبِي مِنْهُ قَالَ ‏: يَكْفِيكَ بِأَنْ تَأْخُذَ كَفًّا مِنْ مَاءٍ فَتَنْضَحَ بِهَا مِنْ ثَوْبِكَ حَيْثُ تُرَى أَنَّهُ أَصَابَهُ ‏

সাহল ইবনু হুসাইফ রাযি. হতে বর্ণিত, তিনি বলেছেন, আমার অত্যধিক মযী নির্গত হত তাই আমি অধিক গোসল করতাম। অতঃপর আমি এ ব্যাপারে রাসূলুল্লাহ ﷺ-কে জিজ্ঞাসা করি তিনি বলেন, মযী বের হওয়ার পর অযু করাই যথেষ্ট। তখন আমি বলি, ইয়া রাসূলুল্লাহ্! আমার কাপড়ে মযী লাগলে কি করব? তিনি বলেন, কাপড়ের যে যে স্থানে মযীর নিদর্শন দেখবে, এক আজলা পানি নিয়ে উক্ত স্থান ধুয়ে নিবে, যাতে তা দূরীভূত হয়। (আবু দাউদ ২১০)

والله اعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন
মাওলানা উমায়ের কোব্বাদী

আরো পড়ুন–

 ফরজ গোসল করা অসম্ভব হলে কী করবে?

স্বপ্নদোষ হলে কী করণীয়?

ফরজ গোসল না করে কোনো কাজ করা যাবে কী?

ফরজ গোসলের আগে কোন্ কাজ করা যাবে এবং কোন্ কাজ করা যাবে না?

ফরয গোসল সূর্য ওঠার পর করলে কি রোজা হবে?

গোসল করলে কি অযু করতে হয়?

নাপাক জামা ধোয়ার সময় পানি লেগে গেলে হুকুম কী?

হায়েয অবস্থায় স্ত্রী সহবাস করলে কী করণীয়?

ফরজ গোসলের সময় কুলি করা এবং নাকে পানি দেয়ার কথা ভুলে গেলে কী করবে?

ফরজ গোসলের সময় কি পুরুষের মূত্রনালীর ভিতরে পানি ঢোকানো জরুরি?

ন্তব্য

  1. পর্দাশীল মেয়েরা কি বাইক চালাতে পারবে? ইসলামের দৃষ্টিকোন এবং হাদীস দ্বারা ব্যাখা দিলে উপকৃত হব

    • পর্দা করে হ’লেও মেয়েদের যেকোন ধরনের ড্রাইভ করা ঠিক নয়। কারণ এগুলি পুরুষালী কাজ এবং এতে তার বেহায়াপনা প্রকাশ পায়। আল্লাহ প্রকাশ্য ও গোপন যাবতীয় বেহায়াপনাকে নিষিদ্ধ করেছেন (আ‘রাফ ৩৩)। এমনকি এরূপ কাজের নিকটবর্তী হ’তেও নিষেধ করেছেন (আন‘আম ১৫৩)। তার দিকে পুরুষের কুদৃষ্টি পড়ে। এতদ্ব্যতীত তার স্বাস্থ্যগত এবং অন্যান্য ক্ষতির সমূহ আশংকা থাকে। যেহেতু ইসলাম নারীকে গৃহে অবস্থান করার নির্দেশ দিয়েছে এবং জাহেলী যুগের ন্যায় নিজেদের সৌন্দর্য্যকে বাইরে প্রদর্শন করে বেড়াতে নিষেধ করেছে (আহযাব ৩৩), সেহেতু গৃহের দায়িত্ব পালন ও প্রয়োজনে সেখানে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করাই তাদের জন্য নিরাপদ। যদিও প্রয়োজনে পর্দার সাথে তাদের বাইরে যাওয়া নিঃসন্দেহে জায়েয রয়েছে, যা বিভিন্ন হাদীছ দ্বারা প্রমাণিত (আবুদাঊদ, মিশকাত হা/৩২৫১ প্রভৃতি)। তবে বাইরে যাওয়া এবং ড্রাইভ করা কখনো এক নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × 2 =